শিক্ষার্থীদের বাড়িতেই থাকার নির্দেশ

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে আপাতত দুই সপ্তাহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সময়ে শিক্ষার্থীদের বাড়িতেই থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

দেশে আট জনের শরীরে সংক্রমণের এই পরিস্থিতিতে মন্ত্রিসভার এই সিদ্ধান্তের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দেয়া শুরু করেছে।

সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

‘সেই সঙ্গে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে যে, অভিভাবকেরা নিশ্চিত করবে যে তাদের ছেলে-মেয়েরা একা বাইরে ঘুরে না বেড়ায়। তাদের ছুটি দেয়াই হচ্ছে সেফটির জন্য। বাইরে ঘোরাফেরা করলে তদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে। একা একা যেন বাইরে না যায়, অভিভাবকদের সঙ্গে যেতে পারে।’

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি দুপুরে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, যদিও সংক্রমণের ঘটনা অত্যন্ত কম, তবুও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশের সব পর্যায়ে, সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে, মন্ত্রিসভায় এই সিদ্ধান্ত হয়েছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সব কোচিং সেন্টারও এই সময় বন্ধ রাখা হবে বলে জানান তিনি।

দীপু মনি বলেন, অভিভাবকরা উদ্বেগ জানিয়েছিলেন, শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকদের কেউ কেউ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের দাবি জানিয়েছেন।

শিক্ষার্থীদের বাড়িতে থাকার নির্দেশনার বিষয়টি নিয়ে তিনি বলেন, অভিভাবকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ জানাবো, (স্কুল ছুটির সময়) শিক্ষার্থীদের অবশ্যই বাড়িতে থাকা নিশ্চিত করতে হবে।

প্রাথমিকের চিঠি পাঠের কর্মসূচি স্থগিত

পরে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন সংবাদ সম্মেলনে জানান, সারা পৃথিবীতে করোনা ভাইরাস, যদিও আমরা খুব বেশি সংক্রমিত হইনি। তারপরেও আমাদের সাবধানতা অবলম্বনের জন্য, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, দেড়শ’ মানুষের বেশি একত্রে থাকা ঠিক নয়।

‘নানা বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করে প্রাথমিক থেকে শুরু করে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৩১ মার্চ পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। ৩১ মার্চের পরে আমরা পরিবেশ যদি দেখি স্বাভাবিক হয়ে গেছে আমরা খুলে দেবো।’

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *