করোনায় আক্রান্ত ইউনাইটেডের সাবেক এই তারকা

চীনে খেলা কোনো খেলোয়াড় কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত, এমন সংবাদ এত দিন পাওয়া যায়নি। এবার খবর এল চীনের শানডং লুনেং ক্লাবে খেলা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক বেলজিয়ান তারকা মারুয়ান ফেলাইনি এতে আক্রান্ত হয়েছেন।
চীনের উহানেই প্রথম মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছিল কোভিড-১৯ ভাইরাস। কিন্তু চীনে থাকা কোনো খেলোয়াড় এতে আক্রান্ত হয়েছেন—এমন কথা এত দিন শোনা যায়নি। কিন্তু হতাশা ছড়িয়ে এবার খবর এসেছে চীনের শানডং লুনেং ক্লাবে খেলতে যাওয়া বেলজিয়ান তারকা মারুয়ান ফেলাইনি করোনা-আক্রান্ত হয়েছেন। গত মৌসুমেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে চীনের ক্লাবটিতে নাম লিখিয়েছিলেন ফেলাইনি।
নতুন করোনা-আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিন দিন কমছে চীনে,এমনকি উহানেও টানা তিন দিন কোনো কোভিড-১৯ রোগী ধরা পড়েনি। সেখানকার জীবন ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। শহরের মানুষের চলাচল ঠেকাতে বসানো তল্লাশি-চৌকিগুলোও সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। বলা হচ্ছে, গোটা চীনেও গত কয়েক দিন ধরে নতুন কেউ আক্রান্ত হয়নি। এ অবস্থায় এল ফেলাইনির আক্রান্ত হওয়ার খবর।
গত মৌসুমে শানডং লুনেং-য়ে যোগ দিয়ে ১৩ গোল করেছিলেন ফেলাইনি। এর আগে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে খেলে গেছেন সাড়ে পাঁচ বছর। বেলজিয়াম জাতীয় দলের হয়ে ৮৭ ম্যাচ খেলে ১৮ গোল ফেলাইনির। শানডং-য়ে সতীর্থ হিসেবে পেয়েছিলেন সাবেক সাউদাম্পটন স্ট্রাইকার গ্রাজিয়ানো পেলে কে।
এদিকে এসপানিওলের চীনা তারকা উ লেই আক্রান্ত হয়েছেন করোনাভাইরাসে। উ লেই এর কারণেই চীনে মেসি-রামোসদের লা লিগার জনপ্রিয়তা বেড়েছিল। যদিও উ লেই ঘোষণা দিয়েছেন, তিনি আস্তে আস্তে সুস্থ হয়ে উঠছেন। শুধু উ লেই-ই নন, এসপানিওনের আরও ছয় জন খেলোয়াড়-কর্মকর্তা আক্রান্ত হয়েছেন করোনায়। এত দিন তাঁদের নাম প্রকাশ করা হয়নি।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *