সাংবাদিক নির্যাতনকারী সেই নাবিল গ্রেফতার

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় সাংবাদিক সাগর চৌধুরীকে নির্যাতন ও নির্যাতনের ঘটনা ফেসবুকে লাইভে প্রচারের ঘটনায় নাবিল হায়দারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও স্থানীয় বড় মানিকা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন হায়দারের ছেলে। এর আগে মঙ্গলবার রাতে তার বিরুদ্ধে বোরহানউদ্দিন থানায় মামলা হয়।

বুধবার (১ এপ্রিল) দুপুর দেড়টার দিকে বোরহানউদ্দিনের উপজেলা সড়ক এলাকার বাসা থেকে নাবিলকে গ্রেফতার করা হয়। লালমোহন সার্কেলের এডিশনাল পুলিশ ‍সুপার রাসেলুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল তাকে গ্রেফতার করে।

নাবিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি এসএম হলের আবাসিক ছাত্র এবং ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী। এদিকে বোরহানউদ্দিন থানার ওসি এনামুল হক জানান, সাগর চৌধুরী বাদী হয়ে তাকে নির্যাতনের ঘটনায় মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টায় নাবিল হায়দারকে এক নম্বর এবং অজ্ঞাত পাঁচ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

উল্লেখ্য, বড় মানিকা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে জেলেদের জন্য আসা চাল চুরির অভিযোগ করায় সাংবাদিক সাগর চৌধুরীর ওপর মধ্যযুগীয় কায়দায় হামলা চালানোর অভিযোগ ওঠে নাবিল হায়দারের বিরুদ্ধে। ক্ষোভ মেটাতে ওই সাংবাদিককে মোবাইল চোর ও ছিনতাইকারী অপবাদ দিয়ে পেটানো হয়। পরে নির্যতনের ঘটনার একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এরপর ওই সাংবাদিকের বক্তব্যের একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) সকালে উপজেলা সদরের রাজমনি সিনেমা হলের সামনে নির্যাতনের এ ঘটনা ঘটে।

বোরহানউদ্দিন পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সেক্রেটারি রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনাটি খুব বিব্রতকর। মঙ্গলবার সাগর থানায় বসে আমাকে ঘটনাটি জানালে আমি তাকে পরামর্শ দেই বিষয়টি সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল ও নাবিলের বাবা জসিম উদ্দিন হায়দারকে জানানোর জন্য। এ ঘটনার তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাই।’

এর আগে হামলার ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর মঙ্গলবার বিকাল থেকে বার বার ফোন করেও নাবিল ও তার বাবার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে বোরহানউদ্দিন ইউএনও বশির গাজী জানান, বড় মানিকা ইউনিয়নে জেলেদের চাল কম দেয়া হচ্ছে-এরকম অভিযোগে জেলেদের বক্তব্যসহ একটি ভিডিও সোমবার সাগর আমাকে দেখায়। আমি তখনই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও সচিবকে ফোন করে জানতে চাই। এঘটনায় সাংবাদিককে মারধর, নির্যাতন এটা ঠিক নয়, অন্যায়। এর বিচার প্রত্যাশা করি।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *