ঢালাওভাবে মুসলমানদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়ানো হবে এটা গ্রহণযোগ্য নয়,ভারত কে-মুফতি সাখাওয়াত হুসাইন রাজি।

ভারতীয় হিন্দুত্ববাদী মিডিয়ার কাজই হচ্ছে মুসলমানদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করা

তারই অংশ হিসেবে তারা নিজামুদ্দিনের বিরুদ্ধে নগ্ন প্রচারে নেমেছে। যে ৭জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করার কারণে নিজামুদ্দিনকে দোষারোপ করা হচ্ছে তাদের ৬জন ইন্তেকাল করেছেন তেলেঙ্গা প্রদেশে, ১জন শ্রীনগরে। বলা হচ্ছে তারা মধ্য মার্চের দিকে নিজামুদ্দিনে তাবলীগে এসেছিল। আচ্ছা! যদি তারা নিজামউদ্দিন থেকে আক্রান্ত হয়ে গিয়ে থাকে তাহলে এই ১৫ দিনে নিজামুদ্দিনের অনেক সাথীদের তো কবরে চলে যাওয়ার কথা!

তাহলে কি মধ্য মার্চের আগেই নিজামুদ্দিন বন্ধ করে দেয়ার দরকার ছিল। অথচ তার পরেও ভারতে সভা-সমাবেশ ও বিভিন্ন অনুষ্ঠান চালু ছিল। আর তারা নিজামুদ্দিনে থেকে ভালোই করেছেন এমন যুক্তিও উড়িয়ে দেয়া যায় না। কেননা এখন যাদেরকে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে তারা যদি নিজ নিজ এলাকায় ফিরে যেত তাহলে তো ভাইরাস আরো ছড়িয়ে পড়তো!

মারকায বন্ধ করে গত পরশু ৮৫০জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। মানে তাদের সবার আক্রান্ত হওয়া এখনো নিশ্চিত নয়।

অবশ্য ভারতীয় মিডিয়া ২৪জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর দিচ্ছে এবং তাদেরকে আইসোলেশনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে প্রচার করছে। সেটা আসলে কতটা কি তা সময় গড়ালেই বুঝা যাবে।

নানা বিষয় নিয়ে সাদ সাহেবের বাড়াবাড়ির বিষয়টি অস্বীকারের উপায় নেই। তবে এক্ষেত্রে অসতর্কতামূলক কোনো পদক্ষেপের কারণে কিংবা লকডাউনের কারণে সাথীদের নিজ নিজ এলাকায় পৌঁছাতে না পারায় তাদের উপরে পুরো ভারতের দায়িত্ব চাপিয়ে দেয়া হবে এবং ঢালাওভাবে মুসলমানদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়ানো হবে এটা গ্রহণযোগ্য নয়।

আর আশা করছি এ অবস্থা থেকে এতাআতি ভাইয়েরা শিক্ষা গ্রহণ করবেন। উম্মতের এই কঠিন মুহুর্তে পদ-পদবি বড় বিষয় নয়। সহনশীলতা ও উদারতা নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে সঠিক পথে চলতে হবে। অন্তত দ্বীনী বিষয়ে ওলামাদের সঙ্গে থাকতেই হবে।

সূত্র-Mufti Sakhawat Hossain Razi তার ফেসবুক টাইমলাইন থেকে 

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *