মসজিদের জামাতে মুসল্লিগণ কি নির্দিষ্ট পরিমাণ দূরে দাড়াতে পারবেন

প্রশ্ন: বর্তমান করোনা ভাইরাস সংক্রমণের পরিস্থিতিতে মসজিদে নামাজের জামাতে এক মুসল্লি অপর মুসল্লি থেকে দূরত্বে দাঁড়াতে পারবে কিনা? যদি পারে তাহলে দূরত্বের পরিমাণ কতটুকু? স্বাস্থ সংস্থা যতটুকু দূরত্বে সবসময় সাধারণ মানুষকে চলতে বলছে ততটুকু দূরত্বে নামাজে দাঁড়ানো যাবে কিনা?

 

উত্তর: জামাতের সহিত নামায আদায়ের সময় মুসল্লিগন একে অপরের সাথে মিলে, ফাঁকা বন্ধ করে দাঁড়ানো সুন্নত৷ দুজন মুসল্লির মাঝে একজন দাঁড়াতে পারে এপরিমান ফাঁকা রাখা নিয়ম পরিপন্থি ও সুন্নত পরিপন্থী৷ কেননা হাদিস শরীফে এসেছে।

عن عَائِشَةَ قَالَتْ قَالَ رَسُوْلُ اللهِ صَلّى اللهُ عَلَيْهِ وَ سَلَّمَ مَنْ سَدّ فُرْجَةً فِى صَفٍّ رَفَعَهُ اللهُ بِهَا دَرَجَةً وَ بَنٰى لَهُ بَيْتًا فِي الْجَنّةِ.

 

আয়েশা রা. হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যে ব্যক্তি কাতারের মধ্যকার ফাঁক বন্ধ করবে, এর বিনিময়ে আল্লাহ তার একটি মর্যাদা বৃদ্ধি করে দেবেন এবং জান্নাতে তার জন্য একটি ঘর নির্মাণ করে দিবেন। তবারানী, হাদীস ৫৭৯৫; মুসান্নাফে ইবনে আবী শাইবাহ, হাদীস ৩৮২৪।

 

তবে চার মাযহাবের সকল ইমামগনের মতে ফাঁকা বন্ধ করে দাঁড়ানো নামায সহিহ হওয়ার জন্য শর্ত কিংবা কোনো রুকন নয় ৷ তাই সর্বসম্মতিক্রমে ফাঁকা রেখে নামায পড়ে ফেললে নামায হয়ে যাবে ৷ কিন্তু নামায মাকরুহ হবে ৷

 

আর ফকিহগনের নিকট এটি স্বতঃসিদ্ধ যে, প্রয়োজনের ক্ষেত্রে কারাহাত বাকি থাকে না ৷ অতএব বর্তমান পরিস্থিতিতে করোনা সংক্রমণের শংকায় মুসল্লিগন একে অপর থেকে ডাক্তার ও স্বাস্থ্য সংস্থা কর্তৃক নির্দেশিত দূরত্বে দাঁড়াতে পারবে ৷ তাতে নামাযের কোনো ক্ষতি হবে না। ফতহুল কাদীর, ১/৩৬০-৬১; হাশিয়াতুল খারাশী, ২/৩৩; নেহায়াতুল মিনহাজ, ২/১৯৫ ৷

 

উত্তর প্রদানে, মুফতী মেরাজ তাহসীন, মুফতীঃ জামিয়া দারুল উলুম দেবগ্রাম,ব্রাহ্মণবাড়ীয়া।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *