কোভিড-১৯, নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চরম মহামারিকালে একজন আলেমের মানব সেবা।

কোভিড-১৯, নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চরম মহামারিকালে একজন আলেমের মানব সেবা।

আর্তমানবতার সেবায় নিবেদিত প্রাণ তরুণদের আইডল আলেম ও বিশিষ্ট ইসলামিক রাজনীতিবিদ মাওলানা গাজী ইয়াকুব।

১০ই এপ্রিল, শুক্রবার।

দ্যা ভয়েস অফ ঢাকা প্রতিবেন ডেস্কঃ

আল্লাহকে কাছে পাওয়ার আরেকটি অন্যতম মাধ্যম হলো মানবসেবা।

ইসলাম মানুষের সঙ্গে মানুষের ভালোবাসা ও ভ্রাতৃত্ব বন্ধনের জন্যে অনুপ্রেরণা দেয়। মানুষের সেবা করতে এবং তার কষ্ট, অসুবিধা দূর করার জন্যে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়াসাল্লাম নির্দেশ দিয়েছেন।

মানবসেবা ইসলামের একটি শাখা। আমাদের মুসলমান হিসেবে কর্তব্য মানুষের দুঃখে কষ্টে পাশে থাকা, সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়া। আল্লাহর প্রেরিত নবী রাসূল এবং পীর-আউলিয়ারা যারা ইসলাম প্রচারের জন্য এ দেশে এসেছিলেন, তারা সবাই মানবতার সেবায় নিবেদিত ছিলেন।

মানুষের সেবা করা, দুখী মানুষের পাশে দাঁড়ানো একটি উত্তম ইবাদত। যুগে যুগে ইসলামী মনীষীগণ মানব সেবার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন। বিদায় হজে মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, ‘তোমাদের তথা প্রতিটি মুসলমানের জান, মাল, সম্পত্তি, ইজ্জত, শরীরের চামড়া যেভাবে আজকের এ মহান ইয়ামুন্নাহারের দিনে, এ পবিত্র জিলহজ মাসে এ পবিত্র হেরেম শরিফে হারাম ও সুরক্ষিত, ঠিক তেমনিভাবে সব দিন, সব মাস ও সর্ব স্থানে হারাম ও সুরক্ষিত বলে গণ্য হবে। খবরদার! তোমরা আমার অবর্তমানে পুনরায় কাফেরদের ন্যায় পরস্পর মারামারি, কাটাকাটিতে লিপ্ত হবে না।’ (বুখারি শরিফ)।

হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি কোনো মুমিনের পার্থিব কষ্টসমূহ থেকে কোনো কষ্ট দূর করবে কিয়ামতের কষ্টসমূহ থেকে আল্লাহ তার একটি কষ্ট দূর করবেন। যে ব্যক্তি কোনো অভাবীকে দুনিয়াতে ছাড় দেবে আল্লাহ তাকে দুনিয়া ও আখিরাতে ছাড় দেবেন। যে ব্যক্তি কোনো মুমিনের দোষ গোপন রাখবে, আল্লাহ দুনিয়া ও আখিরাতে তার দোষ গোপন রাখবেন। আর আল্লাহ বান্দার সাহায্যে থাকেন যতক্ষণ সে তার ভাইয়ের সাহায্য করে যায়।’ (মুসলিম, আবু দাউদ, তিরমিজি)।

মানব সেবা, সৃষ্টির সেবা আলেমদের ঐতিহ্য। ইসলামের শুরু জামানা থেকেই আলেমরা বিভিন্নভাবে মানুষের সেবা করে যাচ্ছেন। আগামীতে এর পরিধি আরো বাড়ানোর প্রয়োজন।  অমুসলিম এনজিওদের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। অন্যদিকে আলেমরা প্রচার বিমুখ ও সেবামূলক কর্মকাণ্ডে কম জড়িত হওয়ায় আলেম সমাজের সেবা মানুষের কাছে প্রচার করা হয় না।

ঠিক এই চরম মুহূর্তে তরুণদের সেবার ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্য তরুণদের আইডল আলেম ও বিশিষ্ট ইসলামিক রাজনীতিবিদ মাওলানা গাজী ইয়াকুব,বহুদিন ধরেই নিরলস ভাবে  একক উদ্যোগে এভাবেই নিজের ও  দাতাদের  আমানত পৌঁছে দিচ্ছেন নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারের মাঝে। অসহায় মানুষের তালিকা ব্যাপক ভাবে বাড়ছে,  চাহিদা মত ত্রাণ বা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন প্রতিনিয়ত, যদি সমাজের বিত্তবানরাও এই মহান আলেমের মত এগিয়ে আসেন তাহলেই শহর/গ্রামের অসচ্ছলদের অন্নের জোগান দেওয়া সম্ভব হবে বলে মনে করেন আর্ত মানবতার সেবায় নিবেদিত প্রাণ মাওঃ গাজী ইয়াকুব, তিনি বলেন আমি আমার সাধ্য অনুযায়ী আমরণ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাব এবং প্রতিটি অসহায়দের পাশে থাকব  ইনশাল্লাহ।

করোনাভাইরাস এই মহামারীর সময় হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রমের মাধ্যমে নিজেকে বিলিয়ে দিলেন অসচ্ছল আলেম পরিবার সহ অসহায় মানুষদের মুখে একটু হাসি ফুটানোর জন্য, এই সামান্য অনুদান পেয়েই যেন তাদের ঘরে জ্বলে উঠে তুষ্টের আলো।
আর্তমানবতার সেবায় নিবেদিত প্রাণ মাওঃ গাজী ইয়াকুব বলেন, আলহামদুলিল্লাহ প্রতিদিনই কোন না কোন পরিবারের কাছে আমাদের সহযোগিতা বা হাদীয়া গুলো পৌঁছে যাচ্ছে  অভাবী মানুষের ঘরে।
আল্লাহ পাক দাতা গ্রহীতা সকলকে কবুল করে নিন।

মাওঃ গাজী ইয়াকুব বলেন, ক্ষুধার্ত পেট বুঝেনা লকডাউন, কারফিউ, করোনাভাইরাস, কোন কিছুই মানতে চায় না সে, চায় শুধু খাবার আর খাবার, তাই আপনার যতটুকু সাধ্য আছে তা নিয়েই অভাবী মানুষের পাশে ঝাঁপিয়ে পড়ুন,

তবে চাহিদা ব্যাপক। আমার মত অধমের এত চাহিদা পূরণ করা সম্ভব নয়। মহান আল্লাহর দরবারে ফরিয়াদ। তিনি যেনো তার গায়েবি খাজানা থেকে
এর ব্যবস্থা করে দেন, এবং এই অসহায় মানুষ গুলোর প্রতি নুসরত দান করেন।

 

দ্যা ভয়েস অফ ঢাকা– ১০/০৪/২০২০ ৫ঃ২০ পি,এম

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *