করোনায় মৃত ব্যাক্তিকে রেখে পালিয়ে না যাওয়ার আহ্বান আপনজনদের প্রতি- বড় সাহেবজাদা পিরসাহেব মধুপুর।

১২ই এপ্রিল, রবিবার

দ্যা ভয়েস অফ ঢাকা প্রতিবেন ডেস্কঃ করোনায়  আক্রান্ত রুগীকে রেখে পালিয়ে যাওয়া  জঘন্যতম অপরাধ বলে মনে করেন মাওঃ আবু আম্মার আব্দুল্লাহ।

তিনি বলেন,  আপনার ফ্যামিলির কেও করোনায় আক্রান্ত!
এখন কি দায়িত্ব আপনার?
রোগী রেখে পালিয়ে যাবেন কাপুরুষের মত!
নাকি তার পাশেই থাকবেন?
কোনটা করবেন?
ঠান্ডা মাথায় একবার ভাবুনতো? আপনি আক্রান্ত হলে আপনার আপনজন দূরে চলেগেলে বা পালিয়ে গেলে কি ভাববেন আপনি?অথবা তারা কি করলে আপনার আত্বায় শান্তি পেতো?

এক কথায় অপরের জন্য সে-ই জিনিস পছন্দ কর যা নিজের জন্য পছন্দ কর। আর অপরের জন্যও তা অপছন্দ করবে যা নিজের জন্য অপছন্দ করে থাকো,এটা আমার কথা নয় আমাদের প্রিয় রাসুল (সা:) নির্দেশ।

এই হাদিছে অপরের কথা বলা হয়েছে তাহলে রক্তের কেও হলে কি করা? মা-বাবা ভাই-বোন স্বামী-স্ত্রী হলে কি করা? নিজেই ভাবুন একবার অন্তরকেও জিজ্ঞাসা করুন।

আক্রান্ত রুগীকে রেখে পালিয়ে যাওয়ার মত জঘন্যতম অপরাধ কিছু আছে বলে মনে হয়না।
আপনার এই অপকর্মের কারনে এই রোগী ডাক্তার, নার্সদের কাছে চরম অবহেলার সীকার হবেন, এমনকি বাচার সম্ভাবনা থাকলেও লাশ হয়ে ফিরে আসবে।
তাই আপনার উচিত হবে আপনি সরকারের নিয়ম অনুযায়ী তাদের দিক নির্দেশনা মেনে চলুন।
মারা গেলেও নিয়ম মেনে তার কাছেই থাকার চেষ্টা করুন।
লাস গ্রহণ করুন নিয়ম মোতাবেক গুসল জানাজা দাফন করুন।
এই ক্ষেত্রে সাহাজ্য নিতে পারেন আপনার আশেপাশে বহু কাওমি মাদ্রসা আছে তাদের সাথে যোগাযোগ করে, তারা আপনাকে ১০০% সহযোগীতা করবে, ইনশাআল্লাহ।
মুন্সিগঞ্জ অঞ্চলে যদি কোথাও সহযোগীদের সাড়া নাপান সেই ক্ষেত্রে অধমকে
০ ১ ৯ ৯ ৪ ৬ ৬ ৫ ৫ ৫ ৫ এ ফোন করুন।

মনে রাখবেন _______
🌷মৃত্যূ তার নিদৃষ্ট সময়ের এক সেকেন্ড আগে বা পরে হবেনা।
🌷কররোনায় আক্রান্ত হলেই মৃত্যূ অবধারিত! তা কিন্তু নয়,মৃত্যুর হার বিশ্বে সর্বউচ্চ মাত্র ৪% বাকি ৯৬% ভালো হয়ে ঘরে ফিরে।
🌷মানুষ কত রোগে মারা জায় করোনাও একটি রোগ এর চেয়ে বেশী কিছু নয়।
🌷সব রোগের জন্যই ডাক্তারের কিছু নির্দেশকা থাকে
করোনার জন্যও কিছু নির্দেশকা আছে সেটা মেনে চলুন।
🌷করোনায় মারা যাওয়া ব্যাক্তি শহিদের মর্যাদা পাবে,
🌷মারা যাওয়ার পর তার থেকে জীবাণু ছড়ায়না,
🌷তার শরীয়ত সম্মত ভাবেই দাফন করতে হবে,
🌷জানাজায় অংশগ্রহণকারীদের মাঝে জীবাণুবাহি থাকতে পারে তাই সামাজিক দুরত বজায় রাখতেই হবে।
অতএব করোনায় মৃত্যূ ক্তির লাশের সাথে কোনো প্রকারের অবজ্ঞা অনিহা অসাদাচরণ মানবাধিকার লাঙ্গন এবং শরিয়ত বহির্ভূত।

ابو عمار عبدالله

vd-12042020

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *