প্রতিপক্ষের পা কেটে নিয়ে “জয়বাংলা শ্লোগানে” আনন্দ মিছিল।

১২ই এপ্রিল, রবিবার, ২০২০

দ্যা ভয়েস অফ ঢাকা প্রতিবেন ডেস্কঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর-

শাহাদাত হুসাইন সৌদি আরবঃ  নিজ জেলা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার সীমানা পেড়িয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আজ প্রধান আলোচ্য বিষয় হয়েছে প্রতিপক্ষের পা কেটে নিয়ে “জয়বাংলা শ্লোগানে” হালাল করার চেষ্টা।

বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থানরত আমার ফেসবুক বন্ধুদের নিকট ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি ঘটনাটি আমার উপজেলা হওয়ায়।

ভেবেছিলাম এবিষয়ে কিছু বলবোনা-লিখবোনা।
বিবেকের সাথে অনেক যুদ্ধ করে না লিখে পারলামনা।

সারা বিশ্ব এখন আতংকিত করোনা ভাইরাস নিয়ে।বিশ্বের বড় বড় রাঘব বোয়ালেরা বিনা যুদ্ধে থেমে গেছে। কোন শব্দ নেই।চারদিকে শুধু বেচে থাকার আকুল মিনতি।ইয়াহুদি খৃষ্টান দেশের প্রধানরাও আজ তাকিয়ে আছে আসমানী ফায়সালার প্রতি।
মুসলমানদের রক্তের দাগ এখনো যার হাত থেকে মুছেনাই সেই নরেন্দ্র মোদির মুখ থেকেও এখন উচ্ছারিত হচ্ছে আল্লাহ্ পাক রহমান ও রহিম।

দেশের মানুষ একবেলা খাবারের জন্য সরকারী ত্রানের গাড়ী লুট করে নিচ্ছে।চারদিকে যখন করোনার আক্রমন থেকে বেচে থাকার জন্য মহান রব্বের দয়া কামনা করছেন।জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুরো জেলাকে লকডাউন ঘোষনা করছেন সেই ভয়ানক পরিস্থিতিতে একদল অমানুষ দেশীয় অশ্র নিয়ে আদিম খেলায় মেতে উঠেছে।হার জিতের অংশ হিসেবে একদল আরেক প্রতিপক্ষের পা কেটে নিয়ে আনন্দ-উল্লাস করেছে।মাথা কেটে আনতে না পারার আফসোসও করছেন কেউ।

উভয় দলের প্রধানই ক্ষমতাসীন দলের সমর্থক ।একজন চেয়ারম্যান অন্যজন মেম্বার।দুঃখজনক ব্যাপার হল এইসকল অমানুষদেরকেই আমরা ক্ষমতার চেয়ারে বসাই।

কাউছার মোল্লা                                  জিল্লু চেয়ারম্যান

লেখা দীর্ঘায়িত না করে দুটি আবেদন রেখে শেষ করতে চাই।
প্রথম আবেদন দলীয় নেতাদের কাছে।প্লিজ আপনারা দুই দলের কারো পক্ষ নিবেন না। কারো জন্য সুপারিস করবেন না।আইনের হাতে ছেড়ে দিন।দুই দলের প্রধান জিল্লু চেয়ারম্যান আর কাউসার মোল্লা মেম্বারের কঠোর শাস্তির দাবী করুন।

প্রশাসনের কাছে অনুরোধ প্রথমত দুই দলের প্রধান সহ অন্তত প্রথম সারির ত্রিশজনকে গ্রেফতার করে পুরো বিষয়টি দেখুন।

একটি শান্তময় শান্তির নবীনগর চাই।সভ্য মানুষের নবীনগর চাই।

শান্তির আহ্বানে সংবাদ প্রতিবেদক, শাহাদাৎ হুসাইন।সৌদি আরব।
Shahadat Hossain

vd-12042020

 

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *