এবারের ব্যাংক প্রনোদনা সর্বনিম্ন ৩০ হাজার সর্বোচ্চ ১ লাখ

এবার ব্যাংকারদের জন্য প্রণোদনা ঘোষণা করল বাংলাদেশ ব্যাংক। সর্বনিম্ন ৩০ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা দেয়া হবে এ প্রণোদনা। ব্যাংকের স্থায়ী, অস্থায়ী, চুক্তিভিত্তিক সবধরনের কর্মকর্তা-কর্মচারী এ প্রণোদনার আওতায় আসবে। করোনাভাইরাসের সংক্রামণ ঠেকাতে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির মধ্যে ঝুঁকি নিয়ে যারা অফিস করবেন তাদেরকেই প্রণোদনার অর্থ প্রদান করা হবে। ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারা ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

 

আজ সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এ বিষয়ে জারি করা এক সার্কুলারে বলা হয়েছে, যেসব অস্থায়ী বা চুক্তিভিত্তিক কর্মকর্তা/কর্মচারীর মূল বেতন আলাদাভাবে নির্ধারিত নেই, তারাও মাসিক মোট বেতন-ভাতার ৬৫ শতাংশ বিশেষ প্রণোদনা ভাতা হিসেবে প্রাপ্য হবেন। সাধারণ ছুটি শুরু হওয়া পর তারিখ থেকে মাস গণনা শুরু হবে। প্রতি ৩০ দিন অতিক্রান্ত হওয়ার পর পুনরায় নতুন মাস গণনা শুরু হবে। এ নির্দেশনা সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির মেয়াদকাল পর্যন্ত থাকবে।

 

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে অনেক ব্যাংককারই ছুটি নিয়েছেন। অনেকেই আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে ভয়ে অফিস করছেন না। অনেকেই আবার জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অফিস করছেন। সবচেয়ে বেকায়দায় পড়েছেন নিচের সারির কর্মকর্তা-কর্মচারী। চাকরি রক্ষার জন্য উর্দ্ধতন কতর্তৃপক্ষের নির্দেশনা পরিপালন করছেন অনেকেই ঝুঁকি নিয়ে। তাদের ঝুঁকির কথা বিবেচনায় নিয়ে গত রোববার ব্যাংক উদ্যোক্তাদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকসের (বিএবি) পক্ষ থেকে ঘোষণা দেয়া হয়, বেসরকারি ব্যাংকের কর্মীরা কর্মরত অবস্থায় কোনো অসুস্থতা বোধ করলে বা করোনা সংক্রমিত হলে তার চিকিৎসার সম্পূর্ণ ব্যয় বহন করবে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক। করোনায় সংক্রমিত হয়ে কেউ মারা গেলে তার পরিবারকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা দেয়া হবে।

 

আজ বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ বিষয়ে এক সার্কুলার জারি করে আজই সকল ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীদেরকে অবহিত করা হয়েছে।

সার্কুলারে আরো বলা হয়েছে, ব্যাংকে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারী যারা সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটিকালীন ব্যাংকে স্বশরীরে গমনপূর্বক ব্যাংকিং কার্যক্রমে অংশগ্রহণের মাধ্যমে দায়িত্ব পালন করেছেন বা করছেন তারা বিশেষ প্রণোদনা ভাতা প্রাপ্য হবেন। এর মধ্যে সাধারণ ছুটিকালীন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কমপক্ষে ১০ কার্যদিবস স্বশরীরে ব্যাংকে কর্মরত থাকলে তা পূর্ণ মাস হিসেবে গণ্য হবে। তবে ১০ কার্যদিবসের কম সশরীরে ব্যাংকে কর্মরত থাকলে সে ক্ষেত্রে আনুপাতিক হারে উক্ত ভাতা প্রাপ্য হবেন।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *