তিন জন মিলে গলা কেটে হত্যা করা হয় গাজীপুরের প্রকৌশলীকে

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের (অঞ্চল-৭) নির্বাহী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন (৫০) হত্যা মামলায় তার সহকর্মীসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পূর্ব শত্রুতার জেরে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী তাকে খুন করা হয়। গ্রেফতাররা হলেন- গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সহকারী প্রকৌশলী সেলিম হোসেন, গাড়িচালক হাবিব ও ভাড়াটে খুনি শাহিন হাওলাদার। এদের মধ্যে গাড়িচালক হাবিব ও শাহিন হাওলাদার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আর সহকারী প্রকৌশলী সেলিম হোসেনের পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২১ মে) এ তথ্য জানান ডিএমপির উত্তরা বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) কামরুজ্জামান সরদার। তিনি জানান, গত ১১ মে বিকেল ৪টায় উত্তরা ১৭ নম্বর সেক্টরে ফাঁকা জায়গায় অজ্ঞাতনামা একটি মরদেহ পাওয়া যায়। পরে ফিঙ্গারপ্রিন্টের মাধ্যমে জানা যায় নিহত ব্যক্তি দেলোয়ার হোসেন (৫০) গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী (অঞ্চল-৭)। পরে নিহতের স্ত্রী খাদেজা আক্তার (৪২) বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের নামে তুরাগ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। গ্রেফতারদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে কামরুজ্জামান সরদার বলেন, পূর্বশত্রুতার জেরে প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেনকে হত্যা করা হয়েছে। দেলোয়ারকে গাড়িতে করে তুলে নেওয়ার পর প্রকৌশলী সেলিম তার পাশে বসেন। ভাড়াটে কিলার শাহিন ভিকটিম দেলোয়ার হোসেনের ঠিক পিছনের সিটে বসেন এবং একপর্যায়ে আকস্মিকভাবে ভিকটিমের গলায় রশি পেঁচিয়ে টান দেন। এসময় সেলিম নিজে ভিকটিমকে চেপে ধরেন। হত্যার পর তারা সবাই মিলে দেলোয়ার হোসেনের মরদেহ ১৭ নম্বর সেক্টরে খালি প্লটে রাস্তার পাশে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যান। সেলিমের সঙ্গে নিহত দেলোয়ার হোসেনের দীর্ঘদিনের মতানৈক্য ছিল, এর ফলে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী দেলোয়ারকে খুন করা হয়।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *