ভারত চীনের ৫৯টি অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণার পর পাল্টা পদক্ষেপ নিয়েছে বেইজিংও৷

ভারত চীনের ৫৯টি অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণার পর পাল্টা পদক্ষেপ নিয়েছে বেইজিংও৷ জানা গেছে, ইতিমধ্যেই সমস্ত ভারতীয় নিউজ চ্যানেল এবং মিডিয়া ওয়েবসাইটগুলো নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে চীন৷ তবে ভিপিএন’র মাধ্যমেও ভারতীয় চ্যানেলগুলোর লাইভ টিভি দেখা সম্ভব হতো৷ কিন্তু গত দু’দিন ধরে ভিপিএন-ও ব্লক করে রেখেছে চীন৷ সরকারি নির্দেশেই যে এই পদক্ষেপ করা হয়েছে তা স্পষ্ট৷

বেইজিংয়ের ভারতীয় দূতাবাসের একটি সূত্র অনুযায়ী, বর্তমানে শুধুমাত্র আইপি টিভি’র মাধ্যমে ভারতীয় টিভি চ্যানেলগুলো দেখা যাচ্ছে৷ নিষিদ্ধ কোনও ওয়েবসাইট ভিপিএন-এর মাধ্যমে দেখা যায়৷ কিন্তু জানা গেছে, চীন ভিপিএন যাতে কাজ না করে তার জন্য অ্যাডভান্সড ফায়ারবল তৈরি করেছে চীন৷ এর ফলে শুধুমাত্র ভারতীয় ওয়েবসাইটই নয়, বিবিসি এবং সিএনএন’র মতো আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরও ঝাড়াই বাছাই করে সম্প্রচারিত করছে চীন৷ যেমন হংকং-এ চীন বিরোধী বিক্ষোভ সংক্রান্ত কোনও খবর এই সংবাদমাধ্যমগুলোতে দেখানো হলেই ততক্ষণাৎ তা ব্ল্যাক আউট হয়ে যায়৷ চীনবিরোধী খবর দেখানো বন্ধ হওয়ার পরই ফের সংবাদমাধ্যমগুলো দেখা যায়৷

লাদাখ সীমান্তে ভারতীয় এবং চীনের সেনাদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর থেকেই দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ছিল৷ এরই মধ্যে সোমবার কেন্দ্রীয় সরকার ভারতীয়দের ব্যক্তিগত তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষা এবং দেশের নিরাপত্তার যুক্তি দিয়ে ৫৯টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণা করে৷ ভারত সরকার যুক্তি দেয়, এই চীনা অ্যাপগুলোর সার্ভার ভারতের বাইরে রয়েছে৷ যার মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরি করা হচ্ছে৷

চীন সরকার এ বিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া না দিলেও সে দেশের সংবাদমাধ্যমগুলোর মতে, আমেরিকাকে নকল করে ভারত সরকার এমন পদক্ষেপ করেছে৷

অন্যদিকে চীনের সরকারি সরকারি সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস-এর দাবি অনুযায়ী, ভারত সরকারের এই পদক্ষেপ আদতে ভারতীয় অর্থনীতিরই ক্ষতি করবে৷ কারণ ভবিষ্যতে তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে আর কোনও স্টার্টআপ সংস্থায় চীনা বিনিয়োগ আসবে না৷

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *