অভয়নগয়ে যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু, দৌঁড়ে পালালেন কাউন্সিলর

যশোরের অভয়নগরে রিপন শেখ (২৫) নামে একজন দিনমজুরের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার সকালে উপজেলার একতারপুর গ্রামের একটি বাগান থেকে রিপনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

স্ত্রী শাহানাজ বেগমের পরকীয়ায় রিপন বলি হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন নিহতের বাবা শুকুর আলী শেখ। অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় কাউন্সিলর রাশিদা বেগমের ওপরও।

এমন অভিযোগের পর পুলিশ দেখে দৌড়ে পালিয়ে যান সেই কাউন্সিলর।

শুকুর আলী শেখের অভিযোগ, ‘আমার বৌমা শাহানাজ বেগম ও তার প্রেমিক ইব্রাহিম হোসেন রিপন শেখকে পরিকল্পিতভাবে খুন করেছে। তাদের এ খুনে সহযোগিতা করেছে বৌমার খালা আনোয়ারা বেগম, কাউন্সিলর রাশিদা বেগম ও ব্যবসায়ী রফিক।’

এমন অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে নিহতের স্ত্রী শাহানাজ বেগম বলেন, ‘সকালে আমার স্বামী রেললাইনের পাশ দিয়ে হাটাহাটির সময় ট্রেনের ধাক্কায় নিহত হয়েছেন। এটা নিছক দুর্ঘটনা।’

ট্রেনে ধাক্কায় নিহত হলে লাশ রেললাইন থেকে দুই কিলোমিটার দূরে পাওয়া গেল কেন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘জিআরপি মামলা এড়াতে কাউন্সিলর রাশিদা বেগম ও ব্যবসায়ী রফিকের নির্দেশে ভ্যানযোগে মো. রবি লাশটিকে দূরের ওই স্থানে নিয়ে ফেলে দেয়।’

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে স্থানীয় কাউন্সিলর রাশিদা বেগম বলেন, ‘জিআরপির মামলা এড়াতে নিহতের শশুর বাড়ির লোকদের এবং রফিকের পরামর্শে লাশটিকে পাশে রাখতে বলেছি। কিন্তু মো. রবি ভ্যানযোগে দুই কিলোমিটার দূরের একটি বাগানে লাশটি কেন ফেলল তা আমার জানা নেই।’

এদিকে খবর পেয়ে যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল-খ) আবু নাসের ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসলে কাউন্সিলর রাশিদা বেগম ঘটনাস্থল থেকে দৌঁড়ে পালিয়ে যান।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু নাসের বলেন, ‘পুলিশকে না জানিয়ে লাশটিকে কেন সরানো হলো, সে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ’

অভয়নগর থানার ওসি মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ‘রিপন শেখ বৃহস্পতিবার রাতে তার শ্বশুর বাড়ি তালতলা বস্তি এলাকায় রাত যাপন করেন। কি কারণে তার মৃত্যু হয়েছে ময়না তদন্তের পর তা সঠিকভাবে জানা যাবে। বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক তদন্ত চলছে।’

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *